রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৫:১৯ অপরাহ্ন

আওয়ামী লীগের ৫৮ নেতাকর্মীকে বহিষ্কার

নওগাঁ, হবিগঞ্জ, টাঙ্গাইলের মির্জাপুরসহ বিভিন্ন স্থানে আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের ৫৮ নেতাকর্মীকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। চতুর্থ ও পঞ্চম ধাপে ইউপি নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী এবং দলের বিপক্ষে কাজ করায় তাদের বিরুদ্ধে এ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

নওগাঁ : নওগাঁর সাপাহারে আওয়ামী লীগের ছয় নেতাকর্মীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তারা হলেন- সাপাহার ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আকবর আলী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ক্রীড়া সম্পাদক মেহেদী হাসান সরকার, আইহাই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউজ্জামান টিটু মাস্টার, পাতারী ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মুকুল হোসেন, শিরন্টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম আলতাফ মাস্টার ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য মোহাম্মদ আনারুল ইসলাম চৌধুরী।

হবিগঞ্জ : হবিগঞ্জের মাধবপুর, চুনারুঘাট ও বানিয়াচং উপজেলার আওয়ামী লীগের ২৫ জন নেতাকর্মীকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। বহিষ্কৃতদের মধ্যে মাধবপুর উপজেলায় ১৩ জন, চুনারুঘাটে সাতজন ও বানিয়াচংয়ে পাঁচজন রয়েছেন। বহিষ্কতরা হচ্ছেন- মাধবপুর উপজেলার ধর্মঘর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ফারুক আহমেদ, বহরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আরিফুর রহমান আরিফ ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য মিছবাউর বার লিপু, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান দুলাল ও বহরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব, জগদীশপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাসুদ খান, সাবেক সভাপতি নাছির উদ্দিন খান ও নোয়াপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল জলিল মনু, বুল্লা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মিজান ও আওয়ামী লীগ নেতা বশির মিয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের অর্থবিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দিন আহাম্মদ এবং বাঘাসুরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা মিছবাহ উদ্দীন তালুকদার সোয়েব। চুনারুঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক মাওলানা তাজুল ইসলাম, সহ-সভাপতি আব্দুল লতিফ, উপজেলা যুবলীগের সদস্য মুহিতুর রহমান রুমন, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাসছুজ্জামান শামীম, শানখলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম চৌধুরী এখলাছ, সাটিয়াজুড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুর রশিদ এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদবিষয়ক সম্পাদক আনিছ আলী। বানিয়াচং উপজেলা বহিষ্কার করা হয় ১নং বানিয়াচং উত্তর-পূর্ব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা এমএম হাফিজুর রহমান, দৌলতপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মঞ্জু দাস, উপজেলা যুবলীগের সদস্য মাসুদ আহমেদ কুরাইশী মক্কী, পুকড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা নাছির উদ্দিন, সুজাতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বাছির মিয়া।

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) : টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে সরকারদলীয় ছয় নেতাকে দলীয় পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তারা হলেন- আনাইতারা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলম, মহেড়া ইউনিয়নে ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মো. বাদশা মিয়া, বাঁশতৈল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের (প্রস্তাবিত কমিটি) সদস্য মো. হেলাল দেওয়ান, সাংগঠনিক সম্পাদক (প্রস্তাবিত কমিটি) মো. লাল মিয়া, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. শামছুল আলম।

মাধবপুর (হবিগঞ্জ) : হবিগঞ্জের মাধবপুরে ১৩ আওয়ামী লীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তারা হলেন- মাধবপুর উপজেলার ধর্মঘর আওয়ামী লীগ সভাপতি ফারুক আহম্মেদ পারুল, বহরা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আরিফুর রহমান, সদস্য এহতেশাম উল বার চৌধুরী লিপু, আদাঐর ইউনিয়নের উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি হাবিবুর রহমান, যুবলীগ নেতা আশিকুর রহমান দুলাল, জগদীশপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুক খান, সাবেক সভাপতি নাসির উদ্দিন খান, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল জলিল মনু, বুল্লা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মিজান, কৃষক লীগ নেতা বশির মিয়া, ছাতিয়াইন ইউনিয়নের উপজেলা আওয়ামী লীগের অর্থসম্পাদক শহিদ উদ্দিন আহমেদ ও বাঘাসুরা ইউনিয়নের মিজবাহ উদ্দিন তালুকদার সোয়েব।

রাজবাড়ী : রাজবাড়ী সদর উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন পরিষদের আট বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থীকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তারা হলেন- মিজানপুর ইউনিয়নের কবির উদ্দিন শিকদার বাবলু (সাবেক চেয়ারম্যান), আলীপুর ইউনিয়নের আবু বক্কর সিদ্দিক, মূলঘর ইউনিয়নের এসএ হিরু, সুলতানপুর ইউনিয়নের আব্দুর রাজ্জাক মিয়া (বর্তমান চেয়ারম্যান), বসন্তপুর ইউনিয়নের জাকির হোসেন সরদার (সাবেক চেয়ারম্যান) ও মির্জা বদিউজ্জামান বাবু (বর্তমান চেয়ারম্যান), খানগঞ্জ ইউনিয়নের আতাহার হোসেন তকদির (বর্তমান চেয়ারম্যান) ও রামকান্তপুর ইউনিয়নের আব্দুর রহিম মোল্লা (সাবেক চেয়ারম্যান)।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


ফেসবুক পেজ
ব্রেকিং নিউজ