সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:৫২ পূর্বাহ্ন

আরিয়ানের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে ২০ কোটি টাকা, সাক্ষীর অভিযোগে তোলপাড়

মুম্বাইয়ের একটি প্রমোদতরীতে অভিযান চালিয়ে মাদক উদ্ধার করে ভারতের জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনসিবি)। ওই পার্টিতে ছিলেন শাহরুখপুত্র আরিয়ান খান। মাদক মামলায় ৩ অক্টোবর গ্রেফতার করা হয়
তাকে।

কয়েক দফায় জামিন না মঞ্জুর করে আরিয়ানকে জেল হাজতেই রাখা হয়েছে। বর্তমানে বলিউড বাদশাহর পুত্র আছেন মুম্বাই আর্থার রোড জেলে।

এদিকে এনসিবির বিরুদ্ধে এক অভিযোগ নিয়ে তোলপাড় চলছে। ভারতীয় গণমাধ্যমে খবর এসেছে, শাহরুখপুত্র আরিয়ান খানের বিরুদ্ধে কথা বলার জন্য নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি) এক ব্যক্তিকে টাকা দিয়েছে। সেই ব্যক্তিই আরিয়ানের বিপক্ষে সাক্ষী দিয়েছেন। রোববার এমনই বিস্ফোরক দাবি করলেন ওই সাক্ষী নিজেই।

আরিয়ানের গ্রেফতারির ঘণ্টা খানেকের মধ্যেই একটি ছবি ছড়িয়ে পড়ে চারদিকে। তার সঙ্গে সেলফি তুলতে দেখা গিয়েছিল এক ব্যক্তিকে। সেই ব্যক্তির নাম কিরণ পি গোসাভি। প্রথমে মনে করা হয়েছিল কিরণ এনসিবি-র কোনো এক কর্মকর্তা।

অনেকেই সে সময় প্রশ্ন তোলেন কিরণের ওই সেলফি নিয়ে। এরপর এনসিবিকে বিবৃতি দিয়ে জানাতে হয়, কিরণ তাদের কেউ নন। শুধু তাই নয়, কিরণকে এই মামলার অন্যতম সাক্ষী হিসেবে তুলে ধরে তার খোঁজ চালায় এনসিবি। কিরণ ওই ঘটনার পর থেকেই পলাতক।

পলাতক কিরণের সহযোগী প্রভাকর সেইল জানিয়েছেন, তদন্তকারী সংস্থা তাকে ফাঁকা পঞ্চনামায় সই করিয়েছে। এনসিবি কর্মকর্তা সমীর ওয়াংখেড়়ে তাকে বিপদে ফেলার ভয়ও দেখিয়েছেন।

কেপি গোসাভির দেহরক্ষী বলে নিজের পরিচয় দিয়ে তিনি দাবি করেন, শাহরুখ-পুত্রের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে ১৮ কোটি রুপির চু্ক্তি হয়েছে বলে শুনেছেন। বাংলাদেশি টাকায় যা ২০ কোটিরও বেশি। এ বক্তব্য প্রকাশ হতেই তোলপাড় চলছে।

প্রভাকরের দাবি, কেপি গোসাভি ‘রহস্যজনক ভাবে নিখোঁজ’ হয়ে যাওয়ার পর থেকেই সমীর ওয়াংখেড়েকে নিয়ে এই ধরনের ভাবনা শুরু হয়েছে তার। এমনকি তার নিজের জীবন ঝুঁকিতে আছে বলেও দাবি প্রভাকরের।

তবে সর্বভারতীয় একাধিক সংবাদমাধ্যমে ওই সাক্ষীর এমন মন্তব্য প্রকাশ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তাকে ‘মিথ্যে রটনা’ বলে দাবি করেছে এনসিবি। বলেছে, ঠিক সময়ে এর জবাব দেবে তারা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


ফেসবুক পেজ
ব্রেকিং নিউজ