রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৫২ অপরাহ্ন

বরিশাল লঞ্চঘাটে,পথশিশুদের দিয়ে, রিফাত ও কমলা, বিক্রি করাচ্ছে ইয়াবাহ ও গাঁজা।

বরিশাল প্রতিনিধিঃ বরিশাল নগরীর কীর্তনখোলা নদীর তীরে অবস্থীত বি আই ডব্লিউ টিএ লঞ্চঘাট এলাকায় নৌ থানার সামনে পার্কিংয়ের স্থানে বসে প্রতিদিন ছোটো খাটো গাঁজা ইয়াবা সহ বিভিন্ন ধরনের মাদক ক্রয়ে ও বিক্রয়ের নির্ভর স্থান হিসাবে পরিনত হয়েছে।

আর নিরভ ভুমিকায় পুলিশ প্রশাসন। সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, ৮থেকে ১২ বছর বয়সী কিশোর কিশোরী ছেলে ও মেয়েরা প্রকাশ্যে গাঁজা ইয়াবাসহ বিভিন্ন ধরনের মাদক বিক্রয় করেন। এসময় উপস্থিত সংবাদকর্মীদের দেখে পালিয়ে যায় ছেলে ও মেয়েরা।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, রসুল পুর এলাকার রিফাতের নেতৃত্বে ছোটো, ছোটো, ছেলে ও পথচারী মেয়েদের দিয়ে সাপ্লাই দিচ্ছে গাঁজা।

এসময় উপস্থিত জনতা বলেন, বায়েজিদ (সাদা বায়েজিদ) রাকিব ওরফে ছোটো রাকিব, তবলা, বাচ্চু ওরফে (চায়না বাচ্চু) গান ওয়ালাসহ একাধিক ছেলে ও পথচারী মেয়েরা,আলফা, অটো,লঞ্চ স্ট্যাফ, ও স্থানীয়দের কাছে সন্ধ্যা হলেই গাঁজা ইয়াবা সহ বিভিন্ন ধরনের মাদক বিক্রয় করেন।

ঘটনা স্থানে পথশিশুদের সাথে দেখা হলে বলেন, আমরা এখন আর মাদক বিক্রয়ের সাথে জড়িত নয়। তবলা ও সাইফুল (গানওয়ালা) আমার বাবা নেই, ঢাকা থেকে বরিশালে আসছি, কোনো কাম কাইজ না পেয়ে পেটের ক্ষুধায় রসুলপুরের রিফাত ভাইয়ের নেতৃত্বে, ভাত খাবার টাকার জন্য গাঁজা বিক্রি করি। ও তবলা বলে আমার বাসা সাগরদী মা, বাবা, নেই, কোনো রকম দুমুঠো ভাত খাবার জন্য, রসুলপুরের কমলার গাঁজা বিক্রি করি, প্রতিদিন যে ইয়াবাহ ও গাঁজা বিক্রি করে দেই বলেই আমাকে ভাত খাবার জন্য কিছু টাকা দেয়।

অভিযুক্ত রিফাতকে মুঠোফোনে কল দিলে বলেন, ভাই আমি আপনাদের সাথে দেখা করবো আপনারা নিউজটা করবেন না।

নৌ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুঠোফোনে কল দিলে বলেন, আমি এধরণের কোনো অভিযোগ বা তথ্য আমার জানা নেই, তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখে অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


ফেসবুক পেজ
ব্রেকিং নিউজ