সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:০৪ পূর্বাহ্ন

ভোলা মেহেন্দিগঞ্জ রায়পুর লক্ষ্মীপুর হিজলার মূর্তিমান আতঙ্ক আলতু ওহাব ডাকাত শ্রীঘরে।

 

আহসান হাবীব স্টাফ রিপোর্টারঃ

ভোলা, মেহেন্দিগঞ্জ,হিজলা, লক্ষ্মীপুর ও রায়পুরের দুর্গম চরাঞ্চল ও মেঘনার জেলেদের নিকট এক মূর্তিমান আতঙ্ক কুখ্যাত জলদস্যু আলতু ডাকাত, ওহাব ডাকাত‌ ও সাদ্দাম ডাকাতকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে লক্ষ্মীপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত।আজ (১৮ অক্টোবর সোমবার) ১.৩০ মিনিটে তাদের জেলহাজতে প্রেরণের আদেশ দেন আদালত। আদালত সূত্রে জানা যায়, 20 অক্টোবর 2021 সালে মরিয়ম বিবির জিআর 12 মামলায় ভোলা-লক্ষ্মীপুর এর অন্যতম কুখ্যাত ডাকাত আলতু ওহাব ও তাদের সহযোগী 32 জনের নামে আদালত ওয়ারেন্ট ইস্যু করে। পরবর্তীতে আসামিরা পলাতক ছিলেন। আজ আদালতে জামিন নিতে গেলে কুখ্যাত ডাকাত আলতু ওহাব ও সাদ্দামকে হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেয় আদালত।

মামলা সূত্রে জানা যায়,
একসময়ের ছিঁচকে চোর জেলে নৌকার মাঝি আলতু এখন ডাকাত সম্রাট, দুর্গম চরাঞ্চলগুলো তার অভয়ারণ্যে । আলতু ডাকাতের আন্তঃজেলার সক্রীয় সদস্যরা এক স্থানে ডাকাতি করে সেই সমস্ত ডাকাতি ও লুটপাটের মালামাল নৌযোগে অন্য স্থানে নিয়ে আত্মসাৎ করে বলে জানান এলাকাবাসী। তাদের ভয়ে ওই জনপদের মানুষ সর্বদা আতঙ্কে থাকে।
আলতু ডাকাত চক্রের দ্বারা নৃশংস হামলার শিকার মরিয়ম বিবি (৪৫) নামের এক নারী গত ১৭ জানুয়ারি ২০২১ তারিখে লক্ষ্মীপুর বিজ্ঞ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ভোলার কুখ্যাত ডাকাত সর্দার আলতুকে প্রধান আসামি করে ৩২ জন কে এজাহারনামীয় আসামী করে দণ্ডবিধি ১৪৭,৪৪৭,৪৪৮,৩২৩,৩৭৮,৩৮০,৩৮৫,৫০৬,৩৪ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা সূত্রে জানা যায়, আলতু ডাকাত ও তার সহযোগীরা ২৪ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখে লক্ষ্মীপুরের রায়পুর থানার দক্ষিণ চরবংশী ইউনিয়নের পশ্চিম চর কাচিয়ার বাসিন্দা মরিয়ম বিবি’র পরিবারের নিকট থেকে পাঁচ লক্ষ টাকা চাঁদার দাবিতে ও লুটপাট চালিয়ে ৩২ টি গরু ২৮টি ছাগল ঘরের আসবাবপত্র, ২ টি পাওয়ার টিলার, দুটি সোলার প্যানেল,মাছ ধরার একটি ইঞ্জিন চালিত ট্রলার লুটপাট করে নিয়ে যায়।এতে সন্ত্রাসীরা ওই দিন মোট ৩০ লক্ষ ৩৪ হাজার টাকার মালামাল লুটপাট করে।
উল্লেখ্য যে, এই সন্ত্রাসীরা এর আগেও বরিশাল ভোলার বিভিন্ন চরাঞ্চলে লুটপাট, ডাকাতি, অগ্নিসংযোগ, নারী নির্যাতনসহ নানা অপকর্ম করে আসছে। ২৩ নভেম্বর ২০২০ তারিখে এই সন্ত্রাসীরা ভোলার চরে দুর্ধর্ষ হানায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে অসংখ্য নারী পুরুষকে রক্তাক্ত জখম করে ও অঙ্গ হানির মতো নারকীয় তাণ্ডব চালিয়ে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করে এবং একের পর এক চরবাসির কোটি টাকার অধিক মূল্যের গবাদিপশু ও মালামাল লুটপাট করে অসংখ্য পরিবার কে নিঃস্ব করে দেয় ।

রায়পুর থানার এসআই অসীম কুমার ধর দীর্ঘ ৮ মাস তদন্ত করে ডাকাতদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। আলতু ডাকাতের বাহিনীর বিরুদ্ধে ভোলা সদর থানাসহ বিভিন্ন থানায় চাঁদাবাজি,ডাকাতি ও লুটপাটের একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানা যায়।
মামলার বাদী মরিয়ম বিবি বলেন, কুখ্যাত এই সন্ত্রাসীরা আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য। এদের অত্যাচারের ভয়ে মানুষ মুখ খুলতে সাহস পায় না। তাদের দাবি কৃত চাঁদার টাকা না দেয়ায় আমার পরিবারের উপর এমন জঘন্য হামলা চালিয়ে গবাদিপশু ও মালামাল লুটপাট করে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


ফেসবুক পেজ
ব্রেকিং নিউজ